এসএসসি পরীক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ অর্থনীতি ১ম ও ৩য় সপ্তাহ উত্তর

অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১

এসএসসি পরীক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ অর্থনীতি ১ম ও ৩য় সপ্তাহ প্রকাশ করা হয়েছে। আপনারা যারা সরকারি/বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি অর্থনীতি এ্যাসাইনমেন্ট ১ম সপ্তাহ ২০২১ ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করবেন তাদের জন্য যথাযথ নির্দেশনা অনুসরণ করে অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ ১ম ও ৩য় সপ্তাহ এর উত্তর আমাদের ওয়েবসাইট Top Chakri.com এ উপস্থাপন করা হল।

২০২১ সালে কোভিড-১৯ মহামারির কারণে এসএসসি পরীক্ষা গ্রহণে অনিশ্চয়তা দেখাদেয়। ফলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড ১২ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রস্তুত করেছে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য।

দেশের সকল শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন সরকারি-বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের প্রথম সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

১৮ জুলাই, ২০২১ থেকে শুরু হয় এসএসসি পরীক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট যা চলবে সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত। দেশের সকল সাধারণ শিক্ষা বোর্ড থেকে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফরম ফিলাপকৃত শিক্ষার্থীরা এই এসাইনমেন্ট কার্যক্রমের আওতায় থাকবেন এবং নিয়মিত মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত অ্যাসাইনমেন্ট সমূহ সম্পন্ন করে সংশ্লিষ্ট বিষয় শিক্ষকের নিকট জমা দিবেন।

সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ ও মূল্যায়ন নির্দেশনা অনুসরণ করে প্রতি সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট সমূহ বিতরণ, গ্রহণ ও মূল্যায়ন করবেন।

এসএসসি পরিক্ষা অর্থনীতি ৩য় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান

অ্যাসাইনমেন্ট: সূর্যের আলাে ভূমি, নদীর পানি এগুলাের কোনটি সম্পদ বা সম্পদ নয় তা অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোন থেকে বৈশিষ্ট্য উল্লেখ পূর্বক ব্যাখ্যা প্রদান এবং উৎপত্তির ভিত্তিতে সম্পদের শ্রেণিকরণ।

শিখনফল/ বিষয়বস্তুঃ
অর্থনৈতিক সম্পদের ধারণা ব্যাখ্যা করতে পারবে;
প্রাকৃতিক সম্পদ,
মানব সম্পদ এবং উৎপাদিত সম্পদের মধ্যে তুলনা করতে পারবে;

নির্দেশনা (সংকেত/ধাপ/পরিধি):
১. অর্থনৈতিক সম্পদের ধারণা।
২. সম্পদের ৪টি বৈশিষ্ট্যের ব্যাখ্যা।
৩. সম্পদের ৪টি বৈশিষ্ট্যের আলােকে ভূমি, নদীর পানি, সূর্যের আলাে এগুলাের সম্পদ বা সম্পদ নয় তা ব্যাখ্যা।
৪. উৎপত্তির ভিত্তিতে সম্পদের শ্রেণিকরণ।

প্রশ্নের উত্তর :

অর্থনীতি বা ‌‌‌অর্থশাস্ত্র সামাজিক বিজ্ঞান এর একটি শাখা যা পণ্য এবং সেবার উৎপাদন, সরবরাহ, বিনিময়, বিতরণ এবং ভোগ ও ভোক্তার আচার- আচরণ নিয়ে আলোচনা করে। মানব সম্পদ সীমিত কিন্তু চাহিদা অফুরন্ত– এই মৌলিক পরিপ্রেক্ষিতে সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করা অর্থনীতির প্রধান উদ্দেশ্য৷ আমরা জানি, অর্থনীতি শব্দটি ইংরেজি ‘Economics’ শব্দের প্রতিশব্দ। Economics শব্দটি গ্রিক শব্দ ‘Oikonomia’ থেকে উদ্ভূত যার অর্থ গৃহস্থালী পরিচালনা।

এল.রবিন্স এর প্রদত্ত সংজ্ঞাটি বেশিরভাগ আধুনিক অর্থনীতির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। তিনি বলেন, “অর্থনীতি মানুষের অসীম অভাব ও বিকল্প ব্যবহারযোগ্য সীমিত সম্পদের সম্পর্ক বিষয়ক মানব আচরণ নিয়ে আলোচনা করে।” এল.রবিন্সের সংজ্ঞাটি বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে এটি মানব জীবনের তিনটি মৌলিক বৈশিষ্টের উপর প্রতিষ্ঠিত, যথা অসীম অভাব, সীমিত সম্পদ ও বিকল্প ব্যবহারযোগ্য সম্পদ।

(ক) অর্থনৈতিক সম্পদ : অর্থনীতিতে সম্পদ হলাে সেই সমস্ত জিনিস বা দ্রব্য, যেগুলাে পেতে চাইলে আমাদেরকে অর্থ ব্যয় করতে হয়। সংক্ষেপে আমরা এ দ্রব্যগুলােকে অর্থনৈতিক দ্রব্যও বলে থাকি। যেমন- ঘরবাড়ি, আসবাবপত্র, টিভি,চেয়ার টেবিল ইত্যাদি দৃশ্যমান বস্তুগত সম্পদ এবং ডাক্তারের সেবা শিক্ষকের পাঠদান ইত্যাদি অদৃশ্যমান বা অবস্তুগত সম্পদ। উল্লিখিত জিনিসগুলাে পেতে চাইলে অর্থ ব্যয় করতে হবে। আমরা সবাই ‘সম্পদ’ শব্দটির সাথে কমবেশি পরিচিত। আমাদের প্রতিদিনের আলােচনায় বিভিন্নভাবে সম্পদ শব্দটি আসে। যেমন মি. কামাল অনেক অর্থ-সম্পদের মালিক। একজন অর্থনীতিবিদের কাছে সব জিনিস সম্পদ নয়।

(খ) সম্পদের বৈশিষ্ট্য : কোনো জিনিসকে যদি অর্থনীতিতে সম্পদ বলতে হয় তাহলে এর চারটি বৈশিষ্ট্য থাকা আবশ্যক। বৈশিষ্টগুলাে হলাে :

১. উপযােগ : উপযােগ বলতে বােঝায় কোনাে দ্রব্যের উপর মানুষের অভাব মেটানাের ক্ষমতা। কোনাে দ্রব্য সম্পদ হতে হলে সেই দ্রব্যের উপযােগ সৃষ্টির ক্ষমতা থাকতে হবে উপযােগ নেই এমন দ্রব্য বা সেবা মানুষ অর্থ দিয়ে কখনও কেনে না।

২. অপ্রাচুর্যতা : কোনাে দ্রব্য সম্পদ হতে হলে তার পরিমাণ ও যােগান সীমিত থাকবে। যেমন : নদীর পানি, আলো, বাতাস প্রভৃতির যােগান। এগুলাে সম্পদ নয়। তবে শ্রম ব্যবহার করে পানিকে বােতলবন্দি করলে পানিসম্পদে পরিনত হয়। অন্যদিকে জমি, গ্যাস, যন্ত্রপাতি – এগুলাে চাইলেই প্রচুর পাওয়া সম্ভব নয়। অর্থাৎ এগুলাে আমাদের কাছে অপর্যাপ্ত দ্রব্য এগুলোকেও সম্পদ।

৩. হস্তান্তরযােগ্য : সম্পদের আরও একটি বৈশিষ্ট্য হলাে এর হস্তান্তরযােগ্যতা। হস্তান্তরযােগ্য বলতে বোঝায় হাত বদল হওয়া/করা। অর্থাৎ যে দ্রব্যের মালিকানা বদল বা পরিবর্তন করা যায়, তা – ই হলাে সম্পদ। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রতিভাকে অর্থনীতির ভাষায় সম্পদ বলা যাবে না। কারণ তার প্রতিভাকে হস্তান্তর বা মালিকানা বদল করা সম্ভব নয়। আবার টিভির মালিকানা বদল করা যায় বলে টিভি একটি সম্পদ।

৪. বাহ্যিকতা : যে সমস্ত দ্রব্য সামগ্রী মানুষের অভ্যন্তরীণ গুণ বােঝায় তা অর্থনীতির ভাষায় সম্পদ নয়। কেননা এর কোনাে বাহ্যিক অস্তিত্ব আমরা উপলব্ধি করতে পারি না। যেমন : কোনাে ব্যক্তির বিদ্যা বা কম্পিউটারের উপর বিশেষ অভিজ্ঞতা বা জ্ঞান কিংবা কারাে শারীরিক সৌন্দর্য বা চারিত্রিক গুণাবলিকে সম্পদ বলা যাবে না। তবে পুঁজিবাদী বাজার অর্থনীতিতে নানাভাবে এগুলােকেও বিক্রয়যােগ্য সম্পদে পরিণত করা সম্ভব হয়েছে।

(গ) প্রদত্ত তিনটি বস্তু চিহ্নিতকরণ : সূর্যের আলাে, ভূমি ও নদীর পানি এ তিনটির মধ্যে শুধুমাত্র ভূমি এবং নদীর পানি হচ্ছে সম্পদ। প্রকৃতির কাছ থেকে পাওয়া যেসব দ্রব্য মানুষের প্রয়ােজন মেটায়, তাকে প্রাকৃতিক সম্পদ বলে। যেমন- ভূমি, বনভূমি, পাহার- পর্বত, খনিজ সম্পদ, নদ – নদী ইত্যাদি। অর্থাৎ অর্থনৈতিক ভাষায় ভূমি এবং নদীর হচ্ছে সম্পদ। আর সূর্যের আলাে কোনাে সম্পদ নয়।

(ঘ) সম্পদের শ্রেণিকরণ : উৎস বা উৎপত্তির দিক থেকে সম্পদ তিন প্রকার। যথা :

১. প্রাকৃতিক সম্পদ : প্রকৃতির কাছ থেকে পাওয়া যেসব দ্রব্য মানুষের প্রয়ােজন মেটায় , তাকে প্রাকৃতিক সম্পদ বলে। যেমন- ভূমি, বনভূমি, খনিজ সম্পদ, নদ – নদী, আলো-বাতাস ইত্যাদি।

২. মানবিক সম্পদ : মানুষের বিভিন্ন প্রকার যােগ্যতা ও দক্ষতাকে মানবিক সম্পদ বলা হয়। যেমন শারীরিক যােগ্যতা, মেধা বা প্রতিভা, উদ্যোগ, দক্ষতা, সাংগাঠনিক ক্ষমতা ইত্যাদি মানবিক সম্পদ।

৩. উৎপাদিত সম্পদ : প্রাকৃতিক ও মানবিক সম্পদ কাজে লাগিয়ে যে সম্পদ সৃষ্টি হয় তাকে উৎপাদিত সম্পদ বলা হয়। যেমন কাচামাল, যন্ত্রপাতি, বাড়ি-ঘড়, কলকারখানা, যাতায়াত ও যােগাযােগব্যবস্থা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্যকেন্দ্র ইত্যাদি মানুষ তৈরি করে বলে এগুলাে উৎপাদিত সম্পদ।

এসএসসি পরীক্ষা অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ ১ম সপ্তাহ প্রশ্ন/উত্তর

মানবিক ও বানিজ্য বিভাগে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের জন্য ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার প্রথম সপ্তাহের অর্থনীতি বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্ট ১ম সপ্তাহ সমাধান নিচে উল্লেখ করা হলো:

এস.এস.সি পরীক্ষা ২০২১, বিভাগঃ মানবিক, বিষয়ঃ অর্থনীতি, বিষয় কোডঃ ১৫৩, মোট নম্বরঃ ১৬, অ্যাসাইনমেন্ট নম্বর-০১

এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ অর্থনীতি অ্যাসাইনমেন্ট ১ম সপ্তাহ

অধ্যায় ও অধ্যায়ের শিরােনামঃ প্রথম অধ্যায়: অর্থনীতি পরিচয়

অ্যাসাইনমেন্টঃ বাংলাদেশের অর্থব্যবস্থায় ব্যক্তিগত ও সরকারি উদ্যোগ। সম্মিলিতভাবে কাজ করে’—উক্তিটিতে নির্দেশিত অর্থব্যবস্থার বৈশিষ্ট্য উল্লেখপূর্বক বিভিন্ন অর্থ ব্যবস্থার তুলনামূলক সুবিধা ও অসুবিধা মূল্যায়ন

শিখনফল ও বিষয়বস্তুঃ বিভিন্ন অর্থনৈতিক ব্যবস্থার পরিচয় বর্ণনা করতে পারবে। বিভিন্ন অর্থনৈতিক ব্যবস্থার তুলনামূলক সুবিধা ও অসুবিধা মূল্যায়ন করতে পারবে।

নির্দেশনা (সংকেত/ধাপ ও পরিধি)

বিভিন্ন ধরনের অর্থনৈতিক ব্যবস্থার সারণী মিশ্র অর্থব্যবস্থার বৈশিষ্ট্য

বিভিন্ন অর্থব্যবস্থার তুলনামূলক সুবিধা ও অসুবিধা মূল্যায়ন করে কোন অর্থনৈতিক ব্যবস্থাটি ভালাে তার স্বপক্ষে যুক্তি।

শিখনফলঃ

বিভিন্ন অর্থনৈতিক ব্যবস্থার পরিচয় বর্ণনা করতে পারবে।

বিভিন্ন অর্থনৈতিক ব্যবস্থার তুলনামূলক সুবিধা ও অসুবিধা মূল্যায়ন করতে পারবে।

এসএসসি পরীক্ষা বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা এ্যাসাইনমেন্ট ১ম সপ্তাহ উত্তর পেতে এখানে ক্লি করুন–

এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ অর্থনীতি এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ১ম সপ্তাহ

উত্তরঃ

১)বিভিন্ন ধরনের অর্থনৈতিক ব্যবস্থার ধারণাঃ

ক) ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থাঃ (Capitalistic Economy) এই ব্যবস্থায় উৎপাদনের উপাদানগুলাে ব্যক্তিমালিকানাধীন এবং প্রধানত বেসরকারি উদ্যোগে, সরকারি হস্তক্ষেপ ছাড়া স্বয়ংক্রিয় দামব্যবস্থার মাধ্যমে যাবতীয় অর্থনৈতিক কার্যক্রম পরিচালিত হয়। এ ধরনের অর্থব্যবস্থাকে ধনতান্ত্রিক বা পুঁজিবাদী অর্থব্যবস্থা বলে। অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষভাগে ফরাসি বিপ্লবের মধ্য দিয়ে সমগ্র ইউরােপে ধনতান্ত্রিক অর্থনীতির সূত্রপাত ঘটে।

খ) সমাজতান্ত্রিক নির্দেশমূলক অর্থনীতিঃ (Socialistic or Command Economy) সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতিতে সমাজের অধিকাংশ সম্পদ ও উৎপাদনের উপাদানের উপর রাষ্ট্রের বা সমাজের মালিকানা প্রতিষ্ঠিত থাকে। অধিকাংশ শিল্প-কারখানা ও উৎপাদন প্রতিষ্ঠানের মালিক সরকার বা সমাজ এবং সেগুলাে সরকারি বা সামাজিক নির্দেশে পরিচালিত হয়ে থাকে। কোন কোন দ্রব্য, কী পরিমাণে, কীভাবে এবং কার জন্য উৎপাদিত হবে তা সরকার বা রাষ্ট্র নির্ধারণ করে।

গ) মিশ্র অর্থব্যবস্থাঃ যে অর্থব্যবস্থায় ব্যক্তিমালিকানা ও বেসরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি সরকারি উদ্যোগ ও সামাজিক নিয়ন্ত্রণ বিরাজ করে তাকে মিশ্র অর্থব্যবস্থা বলে। অর্থাৎ এ অর্থব্যবস্থায় ব্যক্তিগত ও সরকারি উদ্যোগ সম্মিলিত ভূমিকা পালন করে। পৃথিবীর অধিকাংশ দেশে মিশ্র অর্থব্যবস্থা বিদ্যমান। যথা-যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, বাংলাদেশ ও ভারত ইত্যাদি।

ঘ)ইসলামী অর্থব্যবস্থাঃ ইসলামের মৌলিক নিয়ম-কানুনের উপর বিশ্বাসকে ভিত্তি করে গড়ে ওঠা অর্থব্যবস্থাকে ইসলামি অর্থব্যবস্থা বলা হয়।

এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ অর্থনীতি এ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ১ম সপ্তাহ

২) মিশ্র অর্থব্যবস্থা এর বৈশিষ্ট্যঃ

ক) সম্পদের ব্যক্তিগত, সমবায় ও সরকারি মালিকানা: মিশ্র অর্থব্যবস্থায় ব্যক্তি তার স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি অবাধে ভােগ করতে পারে ও ক্রয়-বিক্রয় করতে পারে। পাশাপাশি গণদ্রব্য (মহাসড়ক) ও সেবা (স্বাস্থ্যসেবা) উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ প্র প্রধানত সরকার পরিচালনা করে।

খ) ব্যক্তিগত উদ্যোগ: মিশ্র অর্থনীতিতে উৎপাদন, ব্যবসা-বাণিজ্য বণ্টন ও ভােগসহ অধিকাংশ অর্থনৈতিক কার্যাবলি ব্যক্তিগত উদ্যোগে সংগঠিত ও পরিচালিত হয়।

গ) সরকারি উদ্যোগ: Pro মিশ্র অর্থনীতিতে ব্যক্তি উদ্যোগের পাশাপাশি সরকারি উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। দেশের মৌলিক ও ভারী শিল্প, জাতীয় নিরাপত্ত ও জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানসমূহ সরকার পরিচালনা করে থাকে Easy

ঘ) মুনাফা অর্জন: মিশ্র অর্থনীতিতে বেসরকারি খাতে অর্থনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করার মাধ্যমে মুনাফা অর্জন করা সম্ভব হয়। তবে তা অতিরিক্ত একচেটিয়া মুনাফা নয়৷

ঙ) ভােক্তার স্বাধীনতা: ও ভােগের ক্ষেত্রে। অবাধ স্বাধীনতা ভােগ করে। তবে সরকার প্রয়ােজন মনে করলে দ্রব্যের দামের উপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে এবং প্রয়ােজন অনুসারে কোনাে দ্রব্যের উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। যেমন- ধূমপান, মাদকদ্রব্য উৎপাদন ও ভােগ ইত্যাদি s Watched

চ) যৌথ বিনিয়ােগঃ মিশ্র অর্থব্যবস্থায় কোন সম্পদ উৎপাদনের ক্ষেত্রে যৌথভাবে বিনিয়ােগ করা সম্ভব হয়। বেসরকারি (এনজিও) এবং সরকারি উদ্যোগ পাশাপাশি বিরাজ করায় যৌথভাবে বিনিয়ােগ করা সম্ভব হয়।

এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ অর্থনীতি এ্যাসাইনমেন্ট Solution ১ম সপ্তাহ

৩) বিভিন্ন অর্থনৈতিক ব্যবস্থার তুলনামূলক সুবিধাও অসুবিধাসমূহঃ

ক) ভােক্তার স্বাধীনতার ক্ষেত্রেঃ ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় প্রত্যেক ভােক্তা তার নিজস্ব পছন্দ, ইচ্ছা ও রুচি অনুযায়ী অবাধে দ্রব্য ক্রয় ও ভােগ করতে পারে। অর্থাৎ পূর্ণ স্বাধীনতা বিরাজ করে। কিন্তু সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভােক্তারা সরকার ও কেন্দ্রীয় পরিকল্পনা নির্ধারিত উৎপাদিত দ্রব্যাদি ভােগ করে থাকে। কোনাে ডােক্তা ইচ্ছাকৃত অর্থ ব্যয় করে বাজারকে প্রভাবিত করে কোনাে কিছু উৎপাদন ও ভােগ করতে পারে না।

খ) সম্পদের মালিকানা এক্ষেত্রেঃ ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় সমাজের অধিকাংশ সম্পদ বা উৎপাদনে উপকরণগুলাে ব্যক্তিমালিকানায় থাকে। ব্যক্তি এগুলাে হস্তান্তর ও ভােগ করে থাকে। সমাজতান্ত্রিক অর্থনীতিতে অধিকাংশ সম্পদ (জমি, কলকারখানা, খনি ইত্যাদি) ও উৎপাদনের উপাদানগুলাের মালিক হলাে সরকার, সমবায় প্রতিষ্ঠান, যৌথ সামাজিক দল ইত্যাদি। আবার মিশ্র অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় ব্যক্তি তার স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি অবাধে ভােগ করতে পারে ও ক্রয়-বিক্রয় করতে পারে। পাশাপাশি গণদ্রব্য (মহাসড়ক) ও সেবা (স্বাস্থ্যসেবা) উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ প্রধানত সরকার পরিচালনা করে।

গ) প্রতিযােগিতার ক্ষেত্রেঃ সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় অরাধ প্রতিযােগিতার অভাব রয়েছে। কারণ, অধিকাংশ ক্ষেত্রে সরকারি উদ্যোগে উৎপাদন পরিচালিত হওয়ায় সেখানে বহুসংখ্যক বেসরকারি উদ্যোক্তার অবাধ প্রতিযােগিতা থাকে না। কিন্তু ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় দ্রব্য ও সেবা উৎপাদনে প্রথমে অনেক ফার্ম অবাধে প্রতিযােগিতা করে। ফলে তখন দ্রব্যের দাম কম থাকে এবং নতুন নতুন আবিষ্কার সম্ভব হয়। প্রতিযােগিতার Pro

ঘ) মুনাফা অর্জনের ক্ষেত্রেঃ ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় উৎপাদক সর্বোচPT0 মুনাফা অর্জনের জন্য উৎপাদন করে। মিশ্র অর্থনীতিতে বেসরকারি খাতে অর্থনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করার মাধ্যমে মুনাফা অর্জন করা সম্ভব হয়। তবে তা অতিরিক্ত একচেটিয়া মুনাফা নয়। আর সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় উৎপাদন করা হয় সকল জনগণের মঙ্গলের কথা চিন্তা করে।

এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ অর্থনীতি এ্যাসাইনমেন্ট Solution

৪) যে অর্থনৈতিক ব্যবস্থা টি ভালাে তার স্বপক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করা হলােঃ

মিশ্র অর্থনৈতিক ব্যবস্থা হচ্ছে সর্বাপেক্ষা উৎকৃষ্ট অর্থ ব্যবস্থা। কারণ এ অর্থব্যবস্থায় ব্যক্তিমালিকানা ও বেসরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি সরকারি উদ্যোগের মাধ্যমে সম্মিলিতভাবে উৎপাদন কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়। বিশ্বে কোথাও বিশুদ্ধ ধনতন্ত্র বা বিশুদ্ধ সমাজতন্ত্র নেই। তাই অনেকে মিশ্র অর্থব্যবস্থাকে একটি উন্নত অর্থব্যবস্থা বলে মনে করেন। বিশ্বের অধিকাংশ দেশে মিশ্র অর্থব্যবস্থা বিদ্যমান রয়েছে।

এসএসসি পরীক্ষা ২০২১ অর্থনীতি এ্যাসাইনমেন্ট ১ম সপ্তাহ উত্তর সহ বাংলার সকল সরকারি-বেসরকারি এবং এনজিও চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ আমাদের ওয়েবসাইট Top Chakri.com এ প্রকাশ করা হয়। তাই নতুন সকল চাকরির আপডেট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন এবং Facebook পেজটিতে Like দিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here